Header Ads

রাজনীতি মানে টাকা কামানো নয়- সোহেল তাজ

রাজনীতি মানে টাকা কামানো নয়, বলেছেন তানজিম আহমদ সোহেল তাজ।



বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদের ছেলে তানজিম আহমদ সোহেল তাজ বলেছেন, রাজনীতি মানে টাকা কামানো নয়। টাকা বানানোর চিন্তা মাথায় রেখে সঠিক রাজনীতি করা যায় না। সোহেল তাজ একসময় ছিলেন প্রতিমন্ত্রী।

তিনি গতকাল কাপাসিয়া উপজেলায় সরকারি ডাকবাংলোয় আওয়ামী লীগ দলীয় নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে কথা বলছিলেন। তিনি বলেন, রাজনীতি করলে নীতি-আদর্শ বিসর্জন দিতে হবে এটা ঠিক নয়, নীতি-আদর্শ মজবুত থাকলেই অন্যায়ের বিরুদ্ধে দাঁড়ানো যায়।

[caption id="attachment_5530" align="alignnone" width="768"] রাজনীতি মানে টাকা কামানো নয়, বলেছেন তানজিম আহমদ সোহেল তাজ[/caption]

সোহেল তাজ বলেন, তার কর্তব্য হলো অন্যায়ের বিরুদ্ধে দাঁড়ানো। অন্যায় হলে তিনি সহ্য করবেন না। অন্যায়কে তিনি কখনো প্রশ্রয় দেননি। দেবেনও না। তিনি বলেন, যত দিন তিনি এমপি ছিলেন, ততদিন কাপাসিয়ার মর্যাদা নষ্ট হতে দেননি। কাপাসিয়ার ঐতিহ্য, কাপাসিয়ার গর্ব তাজউদ্দীন আহমদ। তাই তাজউদ্দীন আহমদের ঐতিহ্য ধরে রাখতে হবে। এই ঐতিহ্য নষ্ট করতে অনেকে ষড়যন্ত্র করছে। ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সবাইকে রুখে দাঁড়াতে হবে। সুবিধাবাদী চক্রের সমালোচনা করে সোহেল তাজ বলেন, এখন কাপাসিয়ায় আওয়ামী লীগের রাজনীতির সুসময়। তাই অনেকেই রাজনীতির মাঠে ঘোরাফেরা করছেন। দুঃসময় এলে এদের কাউকে পাওয়া যাবে না। ২০০১ সালের পর এই সুবিধাবাদীদের কাউকে পাওয়া যায়নি। তিনি ঘোষণা করেন, দুঃসময় এলে আবারও তিনি মাঠে নামবেন।

কাপাসিয়ায় আওয়ামী লীগের রাজনীতি ধরে রাখতে প্রয়োজনে তিনি বার বার এখানে আসবেন। সোহেল তাজ একপর্যায়ে নেতা-কর্মীদের সঙ্গে ছেলে তুরাজ আহমদ তাজকে পরিচয় করিয়ে দিয়ে বলেন, আমাদের পরিবারে প্রথম কেউ ব্যারিস্টার হলো। তুরাজ লন্ডন থেকে সনদ নিয়ে আগামী মার্চ মাসে আসবে। তিনি বলেন, এলাকার মানুষ তাকে যে ভালোবাসা দিয়েছে তা কখনো ভোলার নয়। সাধারণ মানুষ তাকে দুধ খাইয়েছে। অন্ধকার রাতে পথ দেখানোর জন্য হ্যারিকেন নিয়ে দাঁড়িয়ে থেকেছে।

তিনি বলেন, ‘দরদারিয়ায় আমি নিয়মিত আসব। সময় দেব। আপনারা আমায় পাবেন। মেজ আপা সিমিন হোসেনকেও আপনারা সবসময় কাছে পাবেন।’ আগামী নির্বাচনে তার বোনকে জয়যুক্ত করার জন্য তিনি সবার প্রতি আহ্বান জানান। ডাকবাংলোয় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান প্রধান, শ্রমিক লীগ সভাপতি আবদুল কাদির ফকির, যুবলীগ সভাপতি মাহবুব উদ্দিন আহমদ সেলিম, সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন প্রধান চেয়ারম্যান, বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন প্রধান, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রাজীব ঘোষ, ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি সাইফুল ইসলাম, ছাত্রলীগ সভাপতি আবদুল কাইয়ুম প্রমুখ।

Collect from Bangladesh Protidin

No comments

Theme images by Storman. Powered by Blogger.